কুশিক্ষার কারিগর ব্র্যক ইউনিভার্সিটি
কুশিক্ষার কারিগর ব্র্যক ইউনিভার্সিটি avatar

নামে গণতন্ত্র কিন্তু কাজে স্বৈরাচারীতা আজ উপর থেকে নিচ পর্যন্ত সব জায়গায়… শেষ পর্যন্ত একটি নামকরা প্রাইভেট ইউনিভার্সিটিতেও? সম্প্রতি ব্র্যাক ইউনিভর্সিটির নিম্নোক্ত পোষ্টের স্বৈরাচারীতা দেখে খুব বিস্মিত হলাম। একটি প্রাইভেট ইউনিভার্সিটি ইচ্ছা করলেই পারে নিজের মত করে নিয়ম বানাতে, কিন্তু তা সবার জন্য হবে কেন? নতুন নিয়ম হবে নতুন ভর্তি হওয়া ছাত্র-ছাত্রীর জন্য। কিন্তু যারা নতুন নিয়মের আগে ভর্তি হয়েছে তাদের জন্য কেন? হঠাৎ করেই ৭ম সেমিষ্টারে পড়ারত কারো উপর নতুর কোন কিছু চাপিয়ে দেওয়া মোটেই গ্রহন যোগ্য নয়। এটা সম্পূর্ণরূপে স্বৈরাচারীতা। শিক্ষা যেমন জাতির মেরুদণ্ড, তেমনি একটি বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে সেই মেরুদণ্ড তৈরির স্থান। আজকের ছাত্র-ছাত্রীরা জাতির ভবিষ্যত কর্ণধার, আর সেই ছাত্র-ছাত্রীরা যদি কোন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কুশিক্ষা গ্রহন করে, তাহলে এই বাংলাদেশ চিরদিন অন্ধকারেই রয়ে যাবে। ব্র্যাক ইউনিভার্সিটির মত একটি স্বনামধন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যদি এইরূপের কুশিক্ষার নজির স্থাপন করা হয়, তাহলে আমি বলব বাংলাদেশে কুশিক্ষার চেয়ে অশিক্ষিত খাকা ভালো। ধিক্কার জানাই এই প্রতিষ্ঠানকে, যে প্রতিষ্ঠান নিজেই অশিক্ষিত…

ব্র্যাক ইউনিভার্সিটির যদি আসলেই শিক্ষাদানের ক্ষমতা থাকে, তাহলে আশা করব তারা নিজেদের ভুল বুঝতে পারবে এবং আলোচ্য ছাত্রীর আইডি আনব্লক করে তাকে নিয়মিত পড়ে তার লেখাপড়ার মৌলিক অধিকার নিশ্চিত করবে…

 

সূত্রঃ নিম্নোক্ত পোষ্ট

 

1238126_635156713196096_1602336610_n

 

 

(((( নেকাব’ পরায় বহিস্কার হলো ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী )))

নেকাবসহ বোরকা পরার কারণে এক ছাত্রীকে বহিষ্কার করেছে ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। গত ১২ সেপ্টেম্বর ‘ড্রেসকোড ভাঙ্গার’ অভিযোগে তাকে বহিস্কার করা হয়। ভুক্তভোগি ওই ছাত্রীর নাম হাফসা ইসলাম। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগে (স্নাতক) সপ্তম সেমিস্টারের (মোট ১২ সেমিস্টার) ছাত্রী। হাফসার ভাই আবদুল্লাহ মুহাম্মদের সাথে এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে তিনি ঘটনাটির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। কর্তৃপক্ষের এমন সিদ্ধান্তের খবর প্রকাশ হলে এর প্রতিবাদে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রতিবাদমুখর হয়ে উঠেন বিশ্ববিদ্যালয়ের অনেক শিক্ষার্থী।
আবদুল্লাহ মুহাম্মদের ভাষ্যমতে, ”ও ভাল স্টুডেন্ট। বহিষ্কারের অন্য কোনো কারণ নেই। ওর একমাত্র অপরাধ ও বোরকা পরে।”

হাফসার ফেইসবুক কমেন্টঃ
Hafsa Islam I have no problem with showing my face! I repeatedly told Brac U authority abt it, but they want me to show my face at all times while at campus. Why is that? Isn’t it violating my right? I still am a student of BracU. I didn’t want to give it a bad name.Never! But I am desperate to resume my education. How would you feel if someone blocked ur ID? Ask urself this.If u were in my place, what would u do?
Like · 5 · about an hour ago

 

 

৩ comments on “কুশিক্ষার কারিগর ব্র্যক ইউনিভার্সিটি
কুশিক্ষার কারিগর ব্র্যক ইউনিভার্সিটি avatar

Leave a Reply